May by Known

খাবারের পরিপূর্ণ স্বাদ পেতে লবণ বেশ গুরুত্বপূর্ণ।তবে লবণ যদি বেশি হয়ে যায় তবেই বাড়ে বিপদ।তরকারিতে লবণ কম হলে পরে আবার মিশিয়ে নেয়া যায়। কিন্তু লবণের পরিমাণ বেশি হলে তা মুখে তোলা সম্ভব হয় না।
যদি লবণ বেশি হয়েই যায় তাহলে কি উপায়? চলুন জেনে নেয়া যাক অতিরিক্ত লবণ কমানোর কৌশল।

মশা থেকে বাঁচতে যে ৫ গাছ লাগাবেন....

মশার উপদ্রব থেকে বাঁচতে বাড়িতে লাগান এই ৫টি গাছ।

1.গাঁদা ফুলের গন্ধে শুধু মশা নয়, যে কোনো পোকা-মাকড়ই এর ধারে কাছে ঘেঁষে না। তাই বাড়ির চারপাশে গাঁদা গাছ লাগান। দূরে থাকবে মশা, মাছি, পোকা-মাকড়।

2.তুলসির একাধিক স্বাস্থ্য ও আয়ুর্বেদিক গুণ আছে। তুলসি গাছ পরিবেশকে জীবাণুমুক্ত, বিশুদ্ধ রাখতে সাহায্য করে। তুলসির গন্ধ মশা, মাছি, পোকা-মাকড়কে দূরে রাখে। তাই বাড়িতে টবে হলেও তুলসি গাছ লাগান।

3.লেবু পাতার গন্ধ মশা, মাছি একেবারেই সহ্য করতে পারে না। তাই মশা তাড়াতে বাড়িতে লেবু গাছ লাগাতে পারেন।

4.বাড়িতে রসুন গাছ লাগালে মশার উপদ্রব থেকেও সহজে মুক্তি পাওয়া যায়! বাড়িতে রসুন গাছ লাগান আর ফল পান হাতেনাতে।

5.ল্যাভেন্ডারের গন্ধ মশা, মাছি একেবারেই সহ্য করতে পারে না। বাড়িতে ল্যাভেন্ডার গাছ লাগাতে না পারলেও ল্যাভেন্ডারের গন্ধ যুক্ত সুগন্ধি বা রুম ফ্রেশনার ছড়িয়ে দিন। এতেও মশার উপদ্রব কমবে।

চুলের যত্নে

খাবারের পরিপূর্ণ স্বাদ পেতে লবণ বেশ গুরুত্বপূর্ণ।তবে লবণ যদি বেশি হয়ে যায় তবেই বাড়ে বিপদ।তরকারিতে লবণ কম হলে পরে আবার মিশিয়ে নেয়া যায়। কিন্তু লবণের পরিমাণ বেশি হলে তা মুখে তোলা সম্ভব হয় না।
যদি লবণ বেশি হয়েই যায় তাহলে কি উপায়? চলুন জেনে নেয়া যাক অতিরিক্ত লবণ কমানোর কৌশল।

মানুষ সৌন্দর্য্যের পূজারি। সুন্দর যেকোন কিছুই সবাইকেই আকর্ষন করে, আর এই সুন্দর বিষয়টি নারীদের ক্ষেত্রেই সবচেয়ে বেশী মানিয়ে যায়। নিজেকে সুন্দর করে উপস্থাপনের জন্য নারীরা বিভিন্ন রকম প্রসাধনী ও সাজসজ্জার আশ্রয় নেয়। কিছু টিপস জানা থাকলে এই সাজসজ্জার বিষয়টি হয়ে যায় চটুজলদি এবং ঝামেলাহীন।
আর তাই জেনে নিন কার্যকরী বিউটি টিপস।


সকল রোগ নিরাময়ের এক বিধান প্রতিদিন দু'বেলা ত্রিফলা খান.....

‘ত্রিফলা' অতি চমৎকার এক ভেষজ মিশ্রণ যা অসংখ্য রোগ নিরাময়ে আয়ুর্বেদ চিকিৎসকগণ ব্যবহার করে থাকেন। রেচক বা জোলাপ হিসেবে এর ব্যবহার হলেও অসংখ্য রোগ নিরাময়ে এর রয়েছে বিশাল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।
শরীরকে রোগ মুক্ত রাখতে ত্রিফলার বাস্তবিকই কোনও বিকল্প নেই।

ত্রিফলা কি?

ত্রিফলা হল প্রাচীন আয়ুর্বেদের অন্যতম মূল্যবান ফর্মুলা বা concoction এবং আমাদের স্বাস্থ্য রক্ষায় এটা এখনও প্রাচ্যের মেডিসিনের থেকে বেশি কার্যকরী। ‘ত্রিফলা’ নামের আক্ষরিক অর্থ হচ্ছে ‘তিনটি ফল’ আর নামের সার্থকতা প্রমান করে এটা হরিতকী, বহেরা আর আমলকী এই তিনটি ফলের শুকনো গুঁড়া দিয়ে তৈরি। এই ফলগুলোর প্রত্যেকটিরই স্বাস্থ্য, ত্বক ও চুল রক্ষায় আছে অসামান্য ভূমিকা কিন্তু প্রাচীন আয়ুর্বেদের মতে যখন এদের একত্রে ব্যবহার করা যায় এদের গুণ হাজার গুনে বাড়ে, আর এই ধারণা থেকেই ত্রিফলার উতপত্তি।

স্বাস্থ্য রক্ষায় ত্রিফলাঃ

হয়ত আপনারা বুঝতেই পারছেন যে ত্রিফলায় আমলকীর প্রাচুর্য থাকার কারণে এটা খুব এফেক্টিভ ভাবে আপনাকে আপনার রোজকার প্রয়োজনীয় ভিটামিন সি সরবরাহ করতে পারবে। এছাড়াও বহেরা আর হরিতকী মানবদেহে প্রয়োজনীয় ভিটামিন ও মিনারেলস সরবরাহ করে আপনাকে রাখে ভেতর থেকে সুস্থ এবং সেই সাথে বাড়ায় আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। সহজ কোথায় বলতে গেলে নিয়মিত ত্রিফলার সেবন আপনাকে সিসনাল ঠাণ্ডা, সর্দি, কাশি, জ্বরের হাত থেকে রাখবে অনেক দুরে। আসুন এক নজরে দেখে নেই আপনার স্বাস্থ্যের জন্য ত্রিফলা কি কি করতে পারে-
– মানব দেহের বর্জ্য নিষ্কাশন করা আর ডিটক্সিফাই করায় ত্রিফলার মোকাবেলা আর কেউ করতে পারবে না।
– ত্রিফলা দেহের ভারসম্য বজায় রাখে, দেহ পরিষ্কার রাখে আর প্রয়োজনীয় ভিটামিন আর মিনারেলস দেয়।
– গবেষণায় দেখা গেছে হাই কোলেস্টেরল লেভেল আর আরথাইটিসের ঝুঁকি কমাতে ত্রিফলা ভূমিকা রাখে।
– ত্রিফলার কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে।
– হজম প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করে আর বদহজম জনিত সমস্যা দুর করে।
– শরীরে ফ্যাট সেল জমতে না দিয়ে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে।
– অন্ত্রের সব বর্জ্য দূর করে খাবার থেকে পুষ্টি গ্রহণ করার ক্ষমতা বাড়ায়।
– লিভার পরিষ্কার রাখে আর ডিটক্সিফাই করে।
– গলব্লাডার আর কিডনির পাথর হবার সম্ভবনা দূরে রাখে।
– এর উচ্চমাত্রার ভিটামিন সি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বহুগুণে বাড়িয়ে দেয়।
-বাচ্চাদের সিসনাল রোগ দূরে রাখতে সহায়তা করে।

ত্রিফলা সেবনের উপায়ঃ

নিয়মিত সেবনের জন্য ত্রিফলার গুঁড়া ব্যবহার করাই ভালো। রোজ রাতে এক গ্লাস পানিতে এক চা চামচ ত্রিফলা গুঁড়া ভিজিয়ে রাখুন আর সকালে উঠে খালি পেটে পানিটা খেয়ে নিন। এর আধা ঘণ্টা পর সাধারণ খাওয়া দাওয়া শুরু করুন। এছাড়াও ত্রিফলার সাপ্লিমেনট পাওয়া যায় বাজারে। গুঁড়া ত্রিফলা না পেলে সাপ্লিমেনট ব্যবহার করতে পারেন। আগেই বলে রাখি, জিনিসটা খেতে কিন্তু ভয়ঙ্কর! প্রথম দিকে দাঁতে দাঁত চেপে সহ্য করবেন। পরে নিজে থেকেই অভ্যাস হয়ে যাবে।

সাবধানতাঃ

ত্রিফলা গুঁড়ার কার্যকারিতা দুই মাস পর থেকে কমতে শুরু করে। তাই দুই মাসের অধিক সময়ের বেশি পুরোনো ত্রিফলার গুঁড়া সেবন না করাই ভালো।

#Apon _Angina

08-Oct-2021 তারিখের কুইজ
(অংশগ্রহণ করেছেন: 6088+)
প্রশ্নঃ ইলিশ বাংলাদেশের জাতীয় মাছ। এটি একটি সামুদ্রিক মাছ, যা ডিম পাড়ার জন্য ১২০০ কিমি দূরত্ব অতিক্রম করে বাংলাদেশ ও পূর্ব ভারতের নদীতে আগমন করে। ইলিশ মাছ খুবই সুস্বাদু তাই এটি প্রায় সকলের প্রিয় একটি মাছ। ইলিশ মাছের ছোট বাচ্চাকে জাটকা বলে, বাংলাদেশে সাধারণত ০১নভেম্বর হতে ৩০ জুন পযন্ত সারাদেশে জাটকা আহরণ, পরিবহণ, মজুদ, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় নিষিদ্ধ করা হয়।

কত সাইজের ইলিশ মাছের বাচ্চাকে জাকটা বলে?
(A) ৭ ইঞ্চির ছোট
(B) ৮ ইঞ্চির ছোট
(C) ৯ ইঞ্চির ছোট